তাজা বার্তা | logo

৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

৬৭৭ পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত, কোয়ারেন্টিনে ১২২৫

প্রকাশিতঃ মে ০২, ২০২০, ০১:২৭

৬৭৭ পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত, কোয়ারেন্টিনে ১২২৫

দিনে দিনে করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্তের সংখ্যা যেন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। করোনা প্রতিরোধে সম্মুখভাগে থাকা পুলিশ সদস্যদের ভেতরেও এই সংখ্যা বাড়ছে পাল্লা দিয়ে। এখনো পর্যন্ত ৬৭৭ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

আজ শুক্রবার পুলিশ সদর দপ্তর ও ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানিয়েছে, সারাদেশে আজ শুক্রবার পর্যন্ত মোট ৬৭৭ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদের ভেতরে ৩২৮ জন পুলিশ সদস্য শুধু ডিএমপিতেই আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৮ জন পুলিশ সদস্য।

সূত্রটি আরো জানায়, সারাদেশে মোট কোয়ারেন্টিনে আছেন এক হাজার ২২৫ জন। আইসোলেশনে আছেন ১৭৪ জন। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫৫ জন পুলিশ সদস্য। এখনো পর্যন্ত মারা গেছেন চারজন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ডিএমপি কমিশনার মোহা: শফিকুল ইসলাম এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘আমাদের ডিএমপির তিনশর অধিক পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আমরা তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। অনেকেই আইসোলেশনে আছেন। অনেকেই আবার কোয়ারেন্টিনে আছেন। এ ছাড়া আমাদের যে সদস্যরা মাঠে কাজ করছেন তাদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের যে চারজন সদস্য মারা গেছেন আমরা তাদের পরিবারের পাশে সবসময় আছি এবং থাকবো। ওই সব পরিবারের প্রতি আমরা সমবেদনা জানাচ্ছি।’

পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি মিডিয়া সোহেল রানা এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘বাংলাদেশ পুলিশের কয়েকশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এক হাজারের উপর সদস্য কোয়ারেন্টিনে আছেন। যে সব পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তাঁদের জন্য পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

সোহেল রানা আরো বলেন, ‘এ ছাড়া আমাদের দুই লাখের বেশি পুলিশ সদস্য মাঠে মানুষের সেবা প্রদান এবং করোনা প্রতিরোধে কাজ করছেন। যেসব সদস্য মাঠে থেকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন তাদের জন্যও পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আর আমাদের যে চারজন সদস্য মারা গেছেন তাদের পরিবারের সদস্য আমাদের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ আছে। এ ছাড়া যারা আক্রান্ত হয়েছেন এরমধ্যে তাঁদের পরিবারের সঙ্গেও আমরা যোগাযোগ রাখছি সবসময়। যাতে করে তাঁদের মনোবল না ভেঙে পড়ে। আর মাঠে কাজ করা সব সদস্যের মনোবল ঠিক রাখার জন্য আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সব সদস্যের সঙ্গে সবসময় যোগাযোগ রাখছেন এবং তাদের মনোবল বৃদ্ধি করার জন্য কাজ করছেন।’


© তাজা বার্তা ২০২১

Developed by XOFT IT