তাজা বার্তা | logo

৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মায়ের মতো আগলে রেখেছি, যেন সে আমার সন্তান : ঋষি প্রসঙ্গে স্ত্রী নীতু

প্রকাশিতঃ এপ্রিল ৩০, ২০২০, ১৫:২৬

মায়ের মতো আগলে রেখেছি, যেন সে আমার সন্তান : ঋষি প্রসঙ্গে স্ত্রী নীতু

দুই বছর ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধের পর আজ বৃহস্পতিবার সকালে মুম্বাইয়ের স্যার এইচএন রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন ঋষি কাপুর। কাপুর পরিবারের আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তিনি চেয়েছিলেন, তাঁকে হাসিমুখে স্মরণ করতে, অশ্রুভেজা নয়নে নয়।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ঋষি কাপুরের চিকিৎসা চলাকালে পাশে ছিলেন তাঁর স্ত্রী নীতু সিং কাপুর। সাহস জুগিয়েছিলেন, যেন দ্রুত সেরে উঠতে পারেন ঋষি। প্রায় একবছর তাঁদের নিউইয়র্কে থাকতে হয়। পরে সুস্থ হয়ে ফিরেছিলেন দেশে।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিড ডে-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ঋষি বলেছিলেন, ‘আমার পরিবার ও ভক্তদের জন্য কীভাবে শান্ত থাকতে হয়, তা শিখেছি। এ জন্য আমি তাদের কাছে ঋণী; তারা আমাকে অনেক ভালোবাসা দিয়েছে ও শুভ কামনা জানিয়েছে। নীতু ছিল আমার প্রেরণা, সব দায়িত্ব সে কাঁধে তুলে নিয়েছিল। অসুস্থতার সঙ্গে লড়াই করতে ওরা আমাকে সাহস জুগিয়েছে।’

সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউ-এর সঙ্গে যৌথ সাক্ষাৎকারে অংশ নিয়েছিলেন ঋষি ও নীতু। ক্যানসার ধরা পড়ার পর তাঁদের অবস্থা কেমন হয়েছিল, তার বিস্তারিত বলেছিলেন এ দম্পতি। নীতু বলেন, ‘আমার প্রথম প্রতিক্রিয়া খুব খারাপ ছিল। আমি ভেঙে পড়েছিলাম, আমার সন্তানেরাও ভেঙে পড়েছিল। আমরা জানতাম না কী করব। কিন্তু তখনই আমরা ভাবতে শুরু করলাম, এটা যেহেতু হয়েছে, এর সঙ্গে লড়াই করতে হবে। সে (ঋষি) জানার পর এড়িয়ে যাচ্ছিল। চার-পাঁচ মাস সে নিজের মধ্যে ছিল না। আমি ভাবলাম, যখন তুমি এই ইস্যুকে গ্রহণ করবে, তখনই তুমি আরো শক্তিশালী হবে। আমার মনে হয়, সে আগের চেয়ে আরো দৃঢ়চেতা হলো, মনে হয় পাঁচ-ছয় মাস পর।’

নীতু আরো বলেন, নিজের সন্তানের মতো ঋষিকে দেখভাল করেন। ‘আমার মনে হয়েছিল, আমি ওর মা হয়ে গেছি। যেন ও আমার তৃতীয় সন্তান… খাওয়ানো, শোয়ানো, ওষুধ দেওয়া… যেভাবে বাচ্চার যত্ন নিতে হয়। আমি ওর মা হয়ে গিয়েছিলাম। একজন মা তাঁর সর্বোচ্চটাই দিয়ে থাকেন,’ যোগ করেন ঋষির স্ত্রী।

গতকালই কোলন ইনফেকশনে আক্রান্ত হয়ে ৫৩ বছরে মারা যান বলিউড অভিনেতা ইরফান খান। আর তার পরদিনই বর্ষীয়ান অভিনেতা ঋষি কাপুরের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে বিনোদন অঙ্গনে।

হিন্দি সিনেমার প্রথম পরিবার, ভারতের শোম্যানখ্যাত রাজ কাপুর ও কৃষ্ণা রাজ কাপুরের দ্বিতীয় সন্তান ঋষি কাপুর। তিনি খ্যাতিমান পৃথ্বিরাজ কাপুরের নাতি। তাঁর ভাইবোন—রণধীর, ঋতু নন্দা, রিমা জৈন ও রাজিক কাপুর।

শৈশবে অভিনয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেন ঋষি কাপুর। তাঁর বাবার ‘মেরা নাম জোকার’-এ (১৯৭০) শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করেন, যার জন্য তিনি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৭৩ সালে আইকনিক সিনেমা ‘ববি’-তে অভিনয় করেন ডিম্পল কাপাডিয়ার বিপরীতে। ১৯৭৪ সালে তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে পান ফিল্মফেয়ার পুরস্কার।

১৯৭৩ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত ৯২টি সিনেমায় কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন ঋষি কাপুর। ২০০৮ সালে অর্জন করেন ফিল্মফেয়ার আজীবন সম্মাননা। ১২টি সিনেমায় তাঁর বিপরীতে অভিনয় করেন স্ত্রী নীতু সিং কাপুর।

‘ববি’ ও ‘চাঁদনি’ সিনেমার জন্য ঋষি কাপুর বিখ্যাত। গত বছর তিনি নিউইয়র্কে ক্যানসারের চিকিৎসা শেষে দেশে ফেরেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী নীতু কাপুর এবং দুই ছেলেমেয়ে রণবীর ও রিধিমাকে রেখে গেছেন।

ঋষি কাপুরকে সর্বশেষ ২০১৯ সালে ‘দ্য বডি’ সিনেমায় দেখা গেছে। দীপিকা পাড়ুকোনের একটি সিনেমার সঙ্গে চুক্তি করেছিলেন এ অভিনেতা।


© তাজা বার্তা ২০২১

Developed by XOFT IT