তাজা বার্তা | logo

৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ইলিয়াস জাভেদ ও রউফ সরকারের পাশে প্রযোজক সমিতি

প্রকাশিতঃ মে ০১, ২০২০, ১৮:৪১

ইলিয়াস জাভেদ ও রউফ সরকারের পাশে প্রযোজক সমিতি

একসময়ের দাপুটে অভিনেতা ইলিয়াস জাভেদ, তাঁকে বলা হতো চলচ্চিত্রের রাজপুত্র। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে গত ৩ মার্চ রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। সফল অস্ত্রোপচারের পর সম্প্রতি সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন। তবে চিকিৎসা চলমান।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎপাদন ব্যবস্থাপক মো. আবদুর রউফ সরকার (৫৫) মারা যান গত ২১ এপ্রিল। জীবদ্দশায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎপাদন ব্যবস্থাপক সমিতিতে একাধিকবার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তাঁর মৃত্যুতে বিপাকে পড়েছে পরিবার।

অভিনেতা ইলিয়াস জাভেদ ও প্রয়াত চলচ্চিত্র উৎপাদন ব্যবস্থাপক আবদুর রউফ সরকারের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতি।

এ বিষয়ে প্রযোজক-পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘জাভেদ ভাই আমাদের সিনিয়র শিল্পী, চলচ্চিত্রের আইকন। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে তিনি অসাধারণ অবদান রেখেছেন। তিনি কিছুদিন আগে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। বর্তমানে ভালো আছেন। তবে চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে।’

খসরু আরো বলেন, ‘আবদুর রউফ সরকার চলতি মাসের ২১ তারিখ মারা গেছেন। সবাই তাঁর জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ যেন তাঁর বেহেশত নসিব করেন। অত্যন্ত ভালো মানুষ ছিলেন রউফ। নিষ্ঠার সঙ্গে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎপাদন ব্যবস্থাপক সমিতিতে একাধিকবার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। আকস্মিক এই মৃত্যুতে বিপাকে পড়েছে তাঁর পরিবার। যে কারণে তাঁর পরিবারের পাশে দাঁড়াচ্ছে প্রযোজক সমিতি। এ দুজনকে আমরা আর্থিকভাবে সহযোগিতা করছি। এটা কোনো দান বা অনুদান নয়, চলচ্চিত্রকর্মী হিসেবে সম্মান। সবাই বাসায় থাকুন, সুস্থ থাকুন।’

দর্শকমহলে অভিনেতা হিসেবে পরিচিত হলেও চলচ্চিত্রপাড়ায় জাভেদ সফল নৃত্যপরিচালক। নৃত্য পরিচালনা দিয়েই মূলত তিনি চলচ্চিত্রজগতে যাত্রা শুরু করেন। ইলিয়াস জাভেদ পরবর্তী সময়ে নায়ক হিসেবে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন শতাধিক চলচ্চিত্রে। ‘দোস্ত দুশমন’, ‘অন্ধ প্রেম’ ও ‘রাজলক্ষ্মী শ্রীকান্ত’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে পরিচিতি পান তিনি। ‘নিশান’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে রাতারাতি তারকা খ্যাতি পান জাভেদ।

১৯৭০ থেকে ১৯৮৯ পর্যন্ত নায়কদের মধ্যে জাভেদ ছিলেন অধিক জনপ্রিয়। তাঁকে বলা হতো চলচ্চিত্রের রাজপুত্র। নিজের অভিনীত চলচ্চিত্রে তিনি নৃত্যপরিচালক হিসেবেও কাজ করতেন। তবে নৃত্যপরিচালক হিসেবে নয়, পর্দায় নায়িকাদের সঙ্গে নেচে দর্শকের মন জয় করেছিলেন জাভেদ।

নায়ক হিসেবে জাভেদ অভিনয় করেছেন ‘মালকা বানু’, ‘অনেক দিন আগে’, ‘শাহাজাদা’, ‘রাজকুমারী চন্দ্রবান’, ‘সুলতানা ডাকু’, ‘আজো ভুলিনি’, ‘কাজল রেখা’, ‘সাহেব বিবি গোলাম’, ‘নিশান’, ‘বিজয়িনী সোনাভান’, ‘রূপের রানী’, ‘চোরের রাজা’, ‘তাজ ও তলোয়ার’, ‘নরমগরম’, ‘তিন বাহাদুর’, ‘জালিম’, ‘চন্দন দ্বীপের রাজকন্যা’, ‘রাজিয়া সুলতানা’, ‘সতী কমলা’, ‘বাহারাম বাদশা’, ‘আলাদিন আলী বাবা’, ‘সিন্দাবাদ’ প্রভৃতি সিনেমায়।


© তাজা বার্তা ২০২১

Developed by XOFT IT