শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ন

স্যাটেলাইট ও অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ক

  • আপডেটঃ বৃহস্পতিবার, ১১ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩ বার দেখা হয়েছে

নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নেটওয়ার্কে ভেতর দিয়ে যাবার সময় পাসওয়ার্ড দেওয়া হয় পাসওয়ার্ডটি এমন ভাবে দেয়া হয় কেউ যেন একটি সেটি সহজে অনুমান করতে না পারে কিন্তু পাসওয়ার্ড বের করে ফেলে ফেলার জন্য বিশেষ কম্পিউটার রোবট তৈরি করা হয়েছে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে

নেটওয়ার্কে বিদেশ যাবার সময় পাসওয়ার্ড দেওয়া হয় তোমরা সবাই জানো নেটওয়ার্কের একটি প্রতিষ্ঠান একটি শহরের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয় এমন কে কে দেশের মধ্যে ও সীমাবদ্ধতা নয় পৃথিবীতে ছড়িয়ে আছে যার অর্থ পৃথিবীর যেকোন জায়গা থেকে সিগনাল পৃথিবীর যেকোন জায়গায় পৌঁছে দিতে হয় কাছাকাছি যাইয়া হলে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে পাঠানো যেতে পারে কিন্তু পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে পাঠাতে হলে স্যাটেলাইট বা অপটিক্যাল ফাইবারের সবচেয়ে কার্যকর পদ্ধতি স্যাটেলাইট বা উপগ্রহ মহাকাশ থেকে পৃথিবীকে ঘিরে ঘুরতে থাকে পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ মাধ্যাকর্ষণ বলের কারণে একটি ঘুরে তাই এটিকে মহাকাশে রাখার জন্য কোন জ্বালানি শক্তি খরচ করতে হয় না স্যাটেলাইট যদি ঠিক 24 ঘন্টা একবার পৃথিবীতে ঘুরে আনা যায় তাহলে পৃথিবী থেকে মনে হবে সেটি বুঝে আকাশে কোন এক জায়গায় স্থির হয়ে আছে এক জায়গায় ধরনের স্যাটেলাইট বলে জিও স্টেশনারি স্যাটেলাইট যে কোন উচ্চতায় জিও স্টেশনারি স্যাটেলাইট রাখা যায় না এটি প্রায় 36 হাজার কিলোমিটার উপরে একটি নির্দিষ্ট কক্ষপথে রাখতে হয় আকাশে একবার জিও স্টেশনারি স্যাটেলাইট বসন হলে পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে সেখানে সিগনাল পাঠানো যায় এবং স্যাটেলাইট সিগন্যাল টিকে নতুন করে পৃথিবীর অন্য প্রান্তের পাঠিয়ে দিতে পারে এ পদ্ধতিতে পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে টেলিফোন মোবাইল ফোন কিংবা ইন্টারনেট সিগনাল পাঠানো যায় 964 সালের প্রথম এমন যখন এভাবে মহাকাশে প্রথমবার জিও স্টেশনারি স্যাটেলাইট স্থাপন করা হয় তখন যোগাযোগের ক্ষেত্রে একটি নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছিল বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট নামে একটি স্যাটেলাইট 2018 সালে 12 তারিখে মহাকাশে প্রেরণ করে স্যাটেলাইট প্রেরণ করে দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান 57 তম স্যাটেলাইটের মাধ্যমে এক নতুন যুগের সূচনা হল স্যাটেলাইট দিয়ে যোগাযোগ করার দুটি সংশ্লেষিত স্যাটেলাইট পৃথিবীর এক পৃথিবী থেকে অনেক উঁচুতে থাকে তাই সেখানে সিগন্যাল পাঠানোর জন্য অনেক বড় এন্টেনা দরকার হয় দ্বিতীয় সমস্যাদি একটি বিচিত্র পৃথিবী থেকে যে সিগনাল পাঠানো হয় সেটি এর ব্যালেন্স সিগনাল এ রইলেন সিগনেট দ্রুতবেগে গেলেও এই বিশাল দূরত্ব অতিক্রম করতে একটু সময় নেই তাই টেলিফোনে কথা বললে অন্য পাশ থেকে কথাটির সাথে সাথে সাথে শুনে একটু পরে শোনা যায় অপটিক্যাল ফাইবার অত্যন্ত অত্যন্ত শুরু এক ধরনের প্লাস্টিক আছে তদন্ত অপটিক্যাল ফাইবার দিয়ে আলোক সিগনাল পাঠানো হয় ঠিক তেমনি বৈদ্যুতিক তার দিয়ে বোঝাতে সিগনাল পাঠানো হয় তোমাদের মনে নিশ্চয়ই প্রশ্ন জাগতে পারে যে অপটিক্যাল ফাইবার এর মধ্য দিয়ে কিভাবে আলোক সিগনাল পাঠানো হয় নিশ্চয়ই একদিনে পূর্ণ অভ্যন্তরীণ প্রতিফলন সম্পর্কে জেনেছি পূর্ণ অভ্যন্তরীণ প্রতিফলনের মাধ্যমে লোক সিগনাল সিগনাল অপটিক্যাল ফাইবার মধ্যে দিয়ে পাঠানো হয় মসজিদে সিগন্যাল প্রথমে আলো সিগনালে পরিণত করা হয় এরপর আরো সিগন্যালকে অপটিক্যাল ফাইবার মধ্য দিয়ে পাঠানো হয় অপরপ্রান্তে আলো সিগনালে বৈদ্যুতিক সিগনালে পরিণত করা হয় এভাবে অপটিক্যাল ফাইবারের মধ্য দিয়ে সিগনাল পাঠানো সম্ভব হয় অপটিক্যাল ফাইবারের ভেতরে অনেক বেশি সিগনাল পাঠানো সম্ভব শুনে অবাক হবেন যে একটি অপটিক্যাল ফাইবারের একসাথে কয়েক লক্ষ টেলিফোন কল পাঠানো সম্ভব ইদানিং অপটিক্যাল ফাইবারের যোগাযোগ এত উন্নত হয়েছে যে পৃথিবীর সব দেশে অপটিক্যাল ফাইবার নেটওয়ার্ক দিতে দিতে একে অন্যের সাথে সংযুক্ত অনেক সময় এক অপটিক্যাল ফাইবার পৃথিবীর এক মহাকাশ থেকে অন্য মহাকাশ নেওয়ার সময় সেটিকে সমুদ্রতলের দিয়ে নেয়া হয় এই ধরনের ফাইবার ক্যাবলের সাবমেরিন ক্যাবল বাংলাদেশ এখন সাবমেরিন ক্যাবলের সাহায্যে বাহিরে পৃথিবীর সাথে সংযুক্ত নাম same2 -4 স্যাটেলাইট সিগন্যাল আলোর বেগে যেতে পারে কিন্তু অপটিক্যাল ফাইবার কাজার প্লাস্টিক যন্ত্র ফাইবার ভেতর দিয়ে যেতে হয় বলে সেখানে আলু এক তৃতীয়াংশ কম তার পরেও পৃথিবীর এক পৃষ্ঠা থেকে অন্য সৃষ্টি অপটিক্যাল ফাইবার সিগনাল পাঠাতে হলে সেটি অনেক তাড়াতাড়ি পাঠানো হয় কারণ এক কারণ তখন প্রায় 36 হাজার কিলোমিটার দূরত্বের ঘুরে স্যাটেলাইট সিগন্যাল গিয়ে আবার ফিরে আসতে হয় তোমরা নিশ্চয়ই এতদিনে জেনে গেছে যে তথ্য প্রযুক্তি আমাদের দৈনন্দিন জীবন থেকে শুরু করে একটা রাষ্ট্রের পরিচালনা নিরাপত্তার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে জীবনে যে কোনো ক্ষেত্রে আরো সুন্দর আরও সহজ এবং আরো দক্ষতা পরিচালনা করতে হলে আমাদের তথ্য প্রযুক্তির সাহায্য নিতে হবে নেটওয়ার্ক কারণে এখন কেউই আর আলাদা নয় 1 অর্থ সবাই সবার সাথে যুক্ত একদিক দিয়ে একটি এটি একটি সাধারন ব্যাপার অন্যদিক দিয়ে একটি নতুন এক ধরনের ঝুঁকি তৈরি করেছে নেটওয়ার্কে দিয়ে যেহেতু সবাই সবার সাথে যুক্ত তাই কিছু অসাধু মানুষ এ নেটওয়ার্ক ভেতর দিয়ে যেখানে তার যাওয়ার কথা নয় সেখানে যাওয়ার চেষ্টা করে সেই তথ্যগুলো কোন কারণে গোপন রাখা হয়েছে শেখা সেগুলো দেখার চেষ্টা করে যারা নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে তারা সব সময় চেষ্টা করবে কেউ জন্য সেটি করতে না পারে প্রতিটি কম্পিউটার বা নেটওয়ার্ক এর নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকে কেউ যেন সেই নিরাপত্তা দেয়াল ভেঙে ঢুকতে না পারে তার চেষ্টা করা হয় নিরাপত্তায় অদৃশ্য দেয়াল কে ফায়ারওয়াল বলা হয় তারপর প্রায় সব সময় অসৎ মানুষের এলাকায় প্রবেশ করছে তার তথ্য সরিয়ে নেই এ পদ্ধতিতে হ্যাকিং করা হ্যাকিং করে তাদেরকে বলেই হ্যাকার একজন মানুষ 18 2008 সালে ইয়াহু অ্যামাজনের মতো বড় বড় প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট হ্যাক করে 100 কোটি টাকা এগুলি সারাক্ষণ এর সম্ভাব্য সকল পাসওয়ার্ড দিয়ে চেষ্টা করতে থাকে সড়ক ততক্ষণে সঠিক পাসওয়ার্ড বের হয় সেজন্য আজকাল প্রায় সব ক্ষেত্রে সঠিক পাসওয়ার্ড দেওয়ার পরও একজনকে ঢুকতে ঢুকতে দেয়া হয় না সেটা টাইপ করে দিতে হয় একজন সত্যিকারের মানুষ যেটি সহজে বুঝতে পারে কিন্তু এটি যন্ত্র বা রোবট তা বুঝতে পারেনা মানুষ এবং যন্ত্রকে আলাদা করার এই পদ্ধতিকে বলা হয় ক্যাপাসিটর যদি যতক্ষণই দিন যাচ্ছে আমরা তত প্র তথ্যপ্রযুক্তি এবং নেটওয়ার্কের উপর বেশি নির্ভর করতে শুরু করেছি কোনো কারণে যদি কিছুক্ষণের জন্য এ নেটওয়ার্ক অচল হয়ে যায় পৃথিবীতে এক ধরনের বিপর্যয় নেমে আসবে বলা যেতে পারে সারা পৃথিবীতে এক ধরনের নিয়ন্ত্রনহীন ব্যবস্থা চলে যাবে যে কারণে নেটওয়ার্কগুলো সচল রাখার জন্য প্রয়োজনীয় সবরকম ব্যবস্থা করা হয় বড় বড় তথ্যভাণ্ডার গুলোকে বলা হয় সেন্টার সব রকমই যান্ত্রিক গোলযোগ গ ওয়াগণ ভূমিকম্প অপরাধীদের হামলা থেকে এগুলোকে রক্ষার ব্যবস্থা করা হয় ইন্টারনেট-

 

 

Many people don’t have a good idea about this completely different kind of insecure varsity. Nowadays we rely on internet for all kinds of information but not all the information is true. There are countless examples of propaganda. When retrieving information from the Internet, you always have to use your knowledge and intellect to verify it through links. One of them is system software. Another application software ensures environment. Microsoft Office Office Office Office Behavioral differences between computer viruses are more important than chair infections. If there is a virus in the computer, the invitation manual that is attached to any functional file extract ball live. On the other hand, the computer worm that p The program spreads to a network and transmits to other computers, meaning that the computer cannot spread without user intervention, such as a pendrive attached to a pen drive. The purpose of malicious software is never successful when it can not be identified as malicious software so many malicious software hides itself in the pursuit of good software in the simple belief of the user who uses it. Effective users can get rid of computer viruses by deleting files or importing new ones. A kind of malicious software is capable of reproducing the wife and can be transmitted from one computer to another. These are called antivirus brother anti-malware software. Most of the anti-virus software works against different mayors but from the beginning there is a list of almost all the antivirus software effective in the market known as antivirus software. General settings are saved and general research is done on the date. Antivirus software is allowed to work.

এই বিভাগ থেকে আরও পড়ুন

এক ক্লিকে বিভাগের খবর

স্বত্ব © তাজা বার্তা ২০২০-২০২১
Developed by XOFT IT